ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম কে না করতে চায়। সকলের ই ইচ্ছা থাকে অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে ঘরে বসে ইনকাম করতে। অনেক মেধাবী ও স্কিল ফুল মানুষ রয়েছে যারা চায় ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে আসতে। তাদের মেধাকে কাজে লাগাতে চায়৷ কিন্তু বিভিন্ন কারনে ও সঠিক গাইডলাইন এর অভাবে পিছিয়ে পড়েন।

অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা চায় পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেই কিছু টাকা ইনকাম করতে। কিন্তু তদের সঠিক গাইডলাইন দেওয়ার কেও না থাকার কারনে এই কাজে যুক্ত হওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না।

আবার অনেকই আছেন ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য নানা ধরনের প্রতিষ্ঠান এ যুক্ত হন, কিন্তু পড়ে দেখা যায় যে বিষয় শেখার জন্য আপনি সেখানে যুক্ত হয়েছিলেন সেই বিষয়ক কোন কিছুই শেখায় না। ধোকা দেওয়া এই বিষয় এখন বাংলাদেশে ব্যাপক পরিমাণে দেখা যায়৷ বিভিন্ন নাম গড়া প্রতিষ্ঠান তৈরি হয়েছে যারা বিভিন্ন কোর্স শেখাবে বলে স্টুডেন্ট ভর্তি করিয়ে তাদের টাকা মেরে দেয়। এগুলো আপনাদের জানালাম বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর এর ঘটনাগুলো।

এখন আমরা মূল বিষয় এ ফিরে আসি। আজকের বিষয় হলো ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য সেরা বিষয় কোনটি। আপনাদের ফ্রিল্যান্সিং এর সেরা বিষয় বলতে যেগুলোকে বোঝানো হয়েছে তা হলো, ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে কাজ করার অনেক গুলো পথ রয়েছে।

যেমন একটি কোম্পানিতে বিভিন্ন মানুষ কাজ করে কেও অফিসার, কেও কর্মচারী, আবার কেও ছোট পদের কর্মচারী ইত্যাদি যেমন ভাগ রয়েছে। ঠিক তেমনি ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরেও বিভিন্ন সাব্জেক্ট বা ভাগ রয়েছে।

ফ্রিল্যান্সিং এর বিষয় গুলো কি কি

ফ্রিল্যান্সিং এর অনেক গুলো বিষয় রয়েছে। এগুলোর যেকোনো একটিতে যদি আপনি অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন, তাহলেই আপনার ক্যারিয়ার সেটেল করে নিতে পারবেন। কারণ ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে এত পরিমানে ইনকাম করা সম্ভব যা আপনার কল্পনার ও বাইরে।

একজন চাকুরীজীবী মাসে ২০/৩০/৪০/৫০+ যে যেমন পদে রয়েছে সেই অনুযায়ী বেতন পেয়ে থাকে এক মাসের কাজের বিনিময়ে। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং এ এই ধরনের ইনকাম কয়েক দিন কাজ করার মাধ্যমেই পেয়ে যেতে পারেন।

তাই আপনাদের জানোট হবে ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি বিষয় রয়েছে।

  • App Development
  • Digital Marketing
  • Graphic Design
  • Website and Software
  • Video Editing
  • Interior Design
  • Cyber Security
  • 3D Animation
  • Networking

এখানে আপনাদের দেখানো হলো কি কি বিষয় এ অভিজ্ঞতা অর্জন করে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন। এখানে যে সকল বিষয় দেখানো হয়েছে, আপনার যে বিষয় এ অভিজ্ঞতা বেশি সে বিষয় এ কোর্স নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। কিন্তু এক্সপার্ট দের মতে কোন বিষয় এ ফ্রিল্যান্সিং শিখলে ভালো পর্যায়ে যাওয়া যায় এটাই এখন জানার বিষয়। সেই বিষয় নিয়েও অনেক গবেষণা করেছেন বড় বড় ফ্রিল্যান্সার রা।

App Development

App Development এ এখানে আপনাকে Html এ কাজ জানতে হবে। যেখানে আপনাকে নিজেই কোডিং এর কাজ করে আ্যাপ তৈরি করতে হবে। আপনি যদি Html ভালো বুঝেন তাহলে App Development নিয়ে কাজ করতে পারেন। App Development এ কাজ করে প্রঁচুর টাকা ইনকাম করা যায়। আপনার যদি আসলেই ফ্রিল্যান্সিং করার ইচ্ছা থাকে তাহলে App Development নিয়ে কাজ করতে পারেন। আপনার জন্য হতে পারে এই বিষয়টি একটি সেরা বিষয়।

Digital Marketing

ডিজিটাল মার্কেটিং হলো বিজ্ঞাপন প্রচার করার মাধ্যমে ইনকাম করা। আপনি যদি খুব সুন্দর উপস্থাপন করতে পারেন, তাহলে এই সেক্টরে কাজ করতে পারেন। কেননা এই সেক্টরের ইনকাম পুরোটাই মূলত প্রচার করার উপর। তাই আপনারা চাইলে এটা দিয়েও আপনাদের ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন। এই কাজটি অন্যান্য কাজের তুলনায় কিছুটা সহজ। তাই এক্সপার্ট দের মতে সহজ কাজ সবাই করতে চাই তাই এর ভ্যালু কমে যায়, তাই যে কাজ সবার দ্বারা সম্ভব না সেই কাজ ওই সকলের করা উচিত।

Graphics Design

গ্রাফিক্স ডিজাইন এই নামটির সাথে মোটামুটি সকলেই পরিচিত। গ্রাফিক্স এর কাজ কিছুটা কঠিন, গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে আপনারা অনেক রকমের ভিজুয়াল কনসেপ্ট এর কাজ করতে পারি, নানান ধরনের ডিজানের সমন্বয় হলো গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ। ক্যারিয়ার হিসেবে এই বিষয় টিও নিতে পারেন।

Website and Software

ওয়েবসাইট ও সফটওয়্যার আমার মতে এই বিষয় কাজ করা খুবই ভালো। এই কাজ এ যেমন ধৈর্য প্রয়োজন রয়েছে ঠিক তেমনি অনেক অনেক টাকা ইনকাম এর ও সুযোগ রয়েছে।

যেমন ধরুন একটি অ্যাপ তৈরি করলেন সেটি ইউজার রা ব্যবহার করলে আপনারা ইনকাম হবে। মানে বুঝতেই পারছেন আপনি হবেন এডমিন কাজ করবে ইউজার প্রফিট পাবেন আপনি৷ বিষয়টি দারুন না। ওয়েবসাইট ও ঠিক এমনি। তাই এই বিষয় নিয়ে কাজ কর‍তে পারেন।

Video Editing

ভিডিও ইডিটিং বলতে তো বুঝতেও পারছেন এটির কাজ কি হতে পারে। ভিডিও ইডিটিং হলো যেকোনো ভিডিও কে ইডিট করার মাধ্যমে আকর্ষণীয় করে তোলা।

বর্তমান সময়ে ভিডিও ইডিটর এর দাম প্রচুর। কেনন নিত্যনতুন ভিডিও সোসিয়াল মিডিয়াতে প্রচারের জন্য ভিডিও ইডিটর এর গুরুত্বই সব থেকে বেশি৷ তাই আপনারা চাইলে এই বিষয় নিয়েও কাজ করতে পারেন।

Interior Design

অভ্যন্তরীণ সাজ সজ্জার কাজ হলো Interior Design এর কাজ। আপনি যদি দালান দোকান ঘর বাড়ির ডিজাইন করতে এক্সপার্ট হন তাহলে এই কাজ আপনার জন্য। কিন্তু যদি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে বলবো এই কাজ নিয়ে কাজ না শুরু করতে। উপরের বিষয় গুলো নিয়ে কাজ করতে পারেন আপনারা। উপরের কাজের চাহিদা অনেক।

Cyber Security – 3D Animation – Networking

এই কাজ গুলোও খুবই ডিমান্ড এবল। এই কাজ গুলো সম্পর্কে মানুষের ধারণা খুবই কম, মানুষ এই ধরনের কাজের থেকে উপরের বিষয় গুলোর কাজ করতে বেশি পছন্দ করে, তাই আপনারা চাইলে এই সুবিধাটি গ্রহন করতে পারেন। এই বিষয় সম্পর্কে কোনো ধারণা না থাকলে ইউটিউব এ ভিডিও দেখে আইডিয়া নিতে পারবেন। ইউটিউবে সার্চ করলেই এই বিষয় সম্প্ররকিত সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

কোথায় কাজ পাবেন

ফ্রিল্যান্সিং এ কাজ পবার মাধ্যম হলো ফাইবার,আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার ডট কম সহ আরো নানান ধরনের সাইট রয়েছে যেখানে বায়ারা কাজ দিয়ে থাকে।

আপনারা এই সকল যায়গায় নিজের একাউন্ট তৈরি করে বায়ারের কাছ থেকে কাজ নিবেন।

আমাদের শেষ কথা

আশাকরি আপনারা জানতে পারলেন ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য কোন বিষয় গুলো ভালো হবে। আজ এ পর্যন্তই। যদি আমাদের এই আরটিকেল আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দেবেন। এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার প্রয়োজনে ধন্যবাদ সকল।

লেখকঃ নিজস্ব রিপোর্টার, ডেইলি নিউজ টুয়েন্টি ফোর।

/* */